e shram card benefits list💲ই শ্রম কার্ডের সুবিধা কি কি

 ভারতের অনেক মানুষ ই শ্রম কার্ড অনলাইন আবেদন করেছেন কিন্তু এর ই শ্রম কার্ডের সুবিধা কি কি রয়েছে এখনো মানুষ ঠিকভাবে  অজানা রয়েছে আজকে আমরা সম্পূর্ণ হবে আলোচনা করব "e shram card benefits" ফর্ম ফিলাপ, registration সমস্ত তথ্য আলোচনা করব।

ভারতের প্রায় 33 কোটি মানুষ রয়েছে যারা আন অর্গানাইজেশন সেক্টরে কাজ করে। ভারত সরকার এইসব ব্যক্তিদের এক ছাদের তলায় আনার জন্য ই শ্রম কার্ড শুরু করেছে যাতে মানুষ  আবেদন করে এর সম্পূর্ণ লাভ পেতে পারে। ভারতের বেশিরভাগ মানুষ এখনো পর্যন্ত সঠিকভাবে জানতে পারল না ই শ্রম কার্ড সুবিধা কি কি রয়েছে? এখনো পর্যন্ত ভারতে  অনেক মানুষ e shram card registration online apply 2022 শুরুর আগে নথিভূক্ত জন্য পিছিয়ে আছে।

e shram card, benefits list

ই শ্রম কার্ড সুবিধা লিস্ট ?

প্রথমে কিন্তু এই কার্ডের সুবিধা কতটা ছিল না কিন্তু পর পর এর সুবিধাগুলো একটিভ করা হচ্ছে। এর মধ্যে অনেকগুলো সুবিধা e shram portal থেকে সোজাসুজি আবেদন করতে পারবেন। নিম্নলিখিত এর সুবিধা গুলি জেনে নিন।

 e shram card benefits list

  • প্রধানমন্ত্রী শ্রম যোগী মান-ধন (PM-SYM) পেনশন যোজনা
  • স্ব-নিযুক্ত ব্যক্তিদের জন্য জাতীয় পেনশন স্কিম (NPS)
  • প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বিমা যোজনা (PMJJBY)
  • প্রধানমন্ত্রী নিরাপত্তা বিমা যোজনা (PMSBY)
  • অটল পেনশন যোজনা (APY) 
  • PDS (যে কোনো পরিবারে 15 থেকে 59 বছরের মধ্যে কোনো সদস্য নেই তাদের জন্য প্রতি মাসে 35 কেজি চাল বা গম)
  • প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা গ্রামীণ (PMAYG)
  • ন্যাশনাল সোশ্যাল অ্যাসিসট্যান্স প্রোগ্রাম বা বার্ধক্য সুরক্ষা (NSAP)
  • আয়ুষ্মান ভারত যোজনা (PMJAY)
  • তাঁতিদের জন্য স্বাস্থ্য বীমা (HIS)
  • জাতীয় সাফাই কর্মচারি (NSKFDC) মেথর হিসাবে জড়িত ব্যক্তি
  • ম্যানুয়াল স্ক্যাভেঞ্জারদের পুনর্বাসনের জন্য স্ব-কর্মসংস্থান প্রকল্প OTCA (সংশোধিত)
সম্পূর্ণ জানতে ক্লিক করে eshram এ জান

e shram card registration 2022 online apply

আপনারা নিজের মোবাইল বা কম্পিউটার থাকে নিজের ই শ্রম কার্ড অনলাইন আবেদন করতে পারেন। এর জন্য ই শ্রম অফিসিয়াল ওয়েবসাইট যেতে হবে এবং REGISTER on e-Shram এ ক্লিক করে আপনারা অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

ই শ্রম কার্ড অনলাইন ফর্ম ফিলাপ কিভাবে করব?

এই কার্ড করার জন্য কয়েকটি স্টেপ ফলো করলেই আপনি e shram card online form fillup করতে পারবেন খুব সহজে। নিম্নলিখিত স্টেপ গুলির ফলো করলে আপনি নিজে অনলাইন ফর্ম ফিলাপ করতে পারবেন।

আপনি আপনার মোবাইলের যেকোনো ব্রাউজার ওপেন করুন এবং টাইপ করুন e shram সার্চ দিন। সার্চ রেজাল্টের প্রথম ওয়েবসাইটে ক্লিক করবেন এবং REGISTER on e-Shram এই অপশনটিতে ক্লিক করবেন।

🔶 e-Shram register Aadhar card 

যদি আপনি অনলাইন আবেদন করতে যাচ্ছেন তাহলে আধার কার্ডের প্রয়োজন রয়েছে এবং আধার কার্ডের সঙ্গে ফোন নাম্বার যুক্ত থাকা বাধ্যতামূলক রয়েছে। আধার কার্ডের সঙ্গে যুক্ত থাকা ফোন নাম্বারটি প্রথমে ফাকা বক্সে বসাবেন, সঠিক ভাবে ক্যাপচা ভরবেন এবং send otp তে ক্লিক করবেন। ওটিপি আসার পর নিচের ফাকা বক্সে বসিয়ে নেক্সট করবেন।

আপনার সঙ্গে নতুন একটি উইন্ডো ওপেন হবে, এখানে আধার কার্ড থাকা ষোলটি নাম্বার উপরে ফাকা বক্সে বসে এবং ক্যাপচা সঠিকভাবে ভোরে নেক্সট করবেন, এরপর আপনার আধার কার্ডের সঙ্গে যুক্ত থাকা ফোন নাম্বারে ওটিপি আসবে সঠিক ভাবে গুছিয়ে নেক্সট করবেন। আপনার ছবি সহ আধার কার্ডের সমস্ত তথ্য আপনার মোবাইল স্ক্রীনে চলে আসবে এবং নিচের প্রসিড বোটনে ক্লিক করবেন।

🔶 Personal details 

এর পরের পেজের মধ্যে  আপনার পারসোনাল ডিটেইলস ফিলাপ করতে হবে। এই পার্সোনালিটি দেশের মধ্যে রয়েছে আবেদনকারীর ফোন নাম্বার, ইমারজেন্সি ফোন নাম্বার, আপনি বিয়ে করেছেন কিনা, আবেদনকারীর বাবার নাম ও সোশ্যাল ক্যাটাগরি দিয়ে নেক্সট করবেন।

🔶 Nominee details 

এরপরের পেজটি ওপেন হলে আপনার নমিনির নাম ও ডিটেলস সম্পন্ন করতে হবে। যেমন নমিনির নাম, জেন্ডার, নমিনির সঙ্গে আপনার রিলেশন ও নমিনির জন্ম তারিখ ভরে নেক্সট করেন।

🔶 Address 

 নতুন  পেজের মধ্যে আপনার রাজ্য, বর্তমান কোন এড্রেসে আছেন, ওই জায়গার মধ্যে আপনি কত বছর আছেন, মাইগ্রেট  ওয়ার্কার হলে yes করবেন, কি কারণে কাজ করছেন ও আপনি বর্তমানে কোথায় আছেন এই সমস্ত সঠিকভাবে ফিলাপ করুন নেক্সট করবেন।

🔶 Qualifications and income details 

এরপরের পেজটি কোয়ালিফিকেশন ইনকাম ডিটেইলস দিতে হবে। আপনার পড়াশোনা কতদূর এবং আপনার মাসে আয় কত সঠিকভাবে ভরতে হবে। সঠিকভাবে পূরণ করার পর নেক্সট এ ক্লিক করবেন।

🔶 Occupation details 

নতুন পেজটিতে আপনার অকুপেশন ডিটেলস সাবমিট করতে হবে। প্রথমে আপনার প্রধান জীবিকা কি, কত বছর ধরে এই পেশার মধ্যে আছেন, আপনার এই পেশা কোথাও থেকে ট্রেনিং পেয়েছেন কিনা, এছাড়া আপনার অন্য কিছুর মধ্যে ইন্টারেস্ট আছে কিনা, যদি ইন্টারেস্ট থাকে তাহলে কোথা থেকে শিখেছেন? এসব তথ্য কমপ্লিট করে নেক্সট বাটনে ক্লিক করবেন।

🔶 Bank account details 

সবশেষে আপনাকে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ডিটেইলস সাবমিট করতে হবে।  এই তথ্যের মধ্যে প্রথমে আপনাকে ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার, ব্যাংক একাউন্ট ফোল্ডারের নাম, IFSC COD, ব্যাংকের নাম ও ব্রাঞ্চের নাম সহ সঠিকভাবে ফিলাপ করে আপনাকে নিচে ডিক্লারেশন এ ক্লিক করে সাবমিট করতে হবে।এই প্রসেস করলে আপনি কিন্তু সঠিকভাবে ই শ্রম কার্ড অনলাইন ফর্ম ফিলাপ করতে পারবে। 

আশা করি ই শ্রম কার্ড অনলাইন আবেদন করতে পারবেন এখন এবং ই শ্রম কার্ড সুবিধা রয়েছে আজকে আমরা সম্পূর্ণ হবে আলোচনা করলাম e shram card benefits, ফর্ম ফিলাপ, registration সমস্ত তথ্য বুঝাতে পেরেছি।

Previous
Next Post »